কোহলির ওপর খেপেছেন ভারতের সমর্থকেরা


আবারও বড় ইনিংস গড়তে ব্যর্থ হয়েছেন বিরাট কোহলি। ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের প্রথম ইনিংসে মাত্র তিন রান করেই আউট হয়েছেন ভারতের অধিনায়ক। শুধু তাই নয়, নষ্ট করেছেন একটি রিভিউও। আর তাতেই চটেছেন ভারতের সমর্থকেরা

দুর্দান্ত সুইং আর সিমের সমন্বয়ে বলটা করেছিলেন টিম সাউদি। আউট সুইং হবে মনে হচ্ছিল।। কিন্তু পিচ করার পর আউট সুইং না করে বল উল্টো ভেতরে ঢুকে যায়। সেটা কোহলি বুঝতে পারেননি। ব্যাটকে ফাঁকি দিয়ে সোজা প্যাডে লাগে বল।

ব্যস, আর যায় কোথায়! সাউদির আবেদন, আম্পায়ারও তুলে দিলেন আঙুল। কিন্তু কী ভেবে কে জানে, চেতেশ্বর পূজারার সঙ্গে আলোচনা করে একদম শেষ মুহূর্তে রিভিউ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন ভারতের অধিনায়ক। লাভ হলো না। উল্টো নষ্ট হলো রিভিউ।

দৃশ্যটা বর্তমানে বেশ পরিচিত। কোহলি নিজের আউটের রিভিউ নিতে চাচ্ছেন, কিন্তু লাভ হচ্ছে না। বারবার নষ্ট করছেন রিভিউ। আজকের পরিস্থিতি তো আরও বেগতিক। কোহলি যখন রিভিউ নিচ্ছিলেন, তখন মাত্র একটি রিভিউই বাকি ছিল ভারতের।

কারণ আরেকটি রিভিউ ততক্ষণে নষ্ট করে ফেলেছিলেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল। হাতে থাকা একটি রিভিউ বাকি ইনিংস ধরে ব্যবহার করতে হবে, আরও সতর্ক হবেন কি, উল্টো নিশ্চিত আউট হওয়া সিদ্ধান্তে রিভিউ নিয়ে নষ্ট করেছেন কোহলি। জন্ম দিয়েছেন সমালোচনার। ভক্তদের চক্ষুশূল হয়েছেন।

২০১৬ সাল থেকে টেস্টে ১৬ বার রিভিউ নিয়েছেন কোহলি। এর মধ্যে মাত্র দুবার সফল হয়েছেন, অর্থাৎ কোহলিকে আগে আউট দেওয়া আম্পায়ার নিজের সিদ্ধান্ত পাল্টাতে বাধ্য হয়েছেন। কিন্তু বাকি ১৪ বার রিভিউ নেওয়ার ক্ষেত্রে কোহলির অদূরদর্শিতাই প্রকাশ পেয়েছে। সর্বশেষ ২০১৭/১৮ মৌসুমে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কলকাতা টেস্টে রিভিউ নিয়ে সফল হয়েছিলেন কোহলি, সেবার আম্পায়ার ছিলেন জোয়েল উইলসন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ নিয়ে বয়ে গেছে সমালোচনার ঝড়। আদিত্য নামের এক ভক্ত লিখেছেন, ‘ক্রিকেট একটা দলগত খেলা। কিন্তু কোহলির তা মানতে বয়েই গেছে। নিজেকে দলের চেয়ে আবারও বড় করে দেখল সে।’ আরেকজন লিখেছেন, ‘শেষ রিভিউ, হাতে আছে সাত উইকেট। এমন অবস্থায় পরিষ্কার এলবিডব্লুর জন্য রিভিউ নেওয়ার সিদ্ধান্ত ক্ষমার অযোগ্য।’ আরেকজন লিখেছেন, ‘আবারও আরেকটা রিভিউ নষ্ট করল কোহলি।’

আরেকজন লিখেছেন, ‘ডিআরএস না থাকায় না পরে আমাদের ভুগতে হয়। আপনি অধিনায়ক বলেই যে শুধু শুধু ডিআরএস ব্যবহার করতে পারবেন, এমনটা ভাববেন না।’ আরেকজন কোহলির অবিবেচনার কথাটা তুলে ধরেছেন, ‘টেস্টে এলবিডব্লু আউট হলেই কোহলি মনে করে সে আউট হয়নি।’

এমনিতেই এই সিরিজে রান করার জন্য সংগ্রাম করছেন কোহলি। তার ওপর এমন সমালোচনায় তাঁর খারাপ লাগারই কথা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*